শনিবার, ২০-জুলাই ২০১৯, ১১:১৯ পূর্বাহ্ন
  • অফিস-আদালত
  • »
  • হাইকোর্টে নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান

হাইকোর্টে নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান

shershanews24.com

প্রকাশ : ১৬ জুন, ২০১৯ ১১:৩৬ পূর্বাহ্ন

শীর্ষকাগজ, ঢাকা: বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশনের (বিএসটিআই) পরীক্ষায় অকৃতকার্য নিম্নমানের পণ্য বাজার থেকে সরিয়ে নেয়ার আদেশ বাস্তবায়ন না করায় তলবের পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্টে উপস্থিত হয়েছেন নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মাহফুজুল হক। আজ সকাল ১০টার দিকে তিনি আদালতে উপস্থিত হন।
এর আগে গত ২৩ মে হাইকোর্টের বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই আদেশ দেন। ওই আদালতে এ বিষয়ে আজ শুনানি অনুষ্ঠিত হবে। ওই দিন নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যানকে আজ নির্ধারিত দিনে (১৬ জুন) সশরীরে উপস্থিত হয়ে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যাখ্যা দেয়ার জন্য নির্দেশনা দেন হাইকোর্ট।
রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ডেপুর্টি অ্যার্টনি জেনারেল মো. মুখলেসুর রহমান জানান, গত ২৩ মে হাইকোর্টের নির্দেশনা অনুযায়ী আজ রোববার হাইকোর্টে এসেছেন তিনি। এখন এর ওপর শুনানি করা হবে।
এর আগে বিএসটিআইয়ের পরীক্ষায় প্রমাণিত ৫২টি ভেজাল বা নিম্নমানের খাদ্যপণ্যের বিষয় নিয়ে গত ৯ মে হাইকোর্টে রিট করে কনসাস কনজ্যুমার সোসাইটি। সে রিটের শুনানি নিয়ে ১২ মে হাইকোর্ট বিএসটিআইয়ের পরীক্ষায় প্রমাণিত ৫২টি নিম্নমানের পণ্য বাজার থেকে অবিলম্বে সরিয়ে নেয়ার নির্দেশ দেন। এ ছাড়া হাইকোর্ট তার আদেশে এসব খাদ্যপণ্য উৎপাদনকারীদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেন এবং মান উন্নীত না হওয়া পর্যন্ত এসব খাদ্যপণ্যের উৎপাদন ও বিক্রি বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়। আদালতের এই আদেশ বাস্তবায়ন করে ১০ দিনের মধ্যে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর ও বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষকে হাইকোর্টে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়।
তারই ধারাবাহিকতায় আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ। তবে, এরা প্রতিবেদনে বাজার থেকে একটি পণ্যও সরানোর তথ্য না দিতে পারায় হাইকোর্ট নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যানকে তলব আদেশ দেন এবং ১৬ জুন এ বিষয়ে শুনানির দিন ঠিক করেন।
ওইদিন তলব করার সঙ্গে সঙ্গে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার রুলও জারি করেছিলেন হাইকোর্ট। দুই সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়।
সম্প্রতি ৪০৬টি খাদ্যপণ্যের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করে বিএসটিআই। এর মধ্যে ৩১৩টি পণ্যের পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হয়। ৩১৩টির মধ্যে ৫২ পণ্য মানহীন বলে প্রতিবেদন দেয় মাননিয়ন্ত্রণকারী সংস্থা। বাকি ৯৩ পণ্যের পরীক্ষার ফলাফল প্রতিবেদন ১৬ তারিখের মধ্যে দিতে বিএসটিআইকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আজ সেটির প্রতিবেদনও আদালতে দাখিল করা হবে।
শীর্ষকাগজ/জে