রবিবার, ২১-জুলাই ২০১৯, ০২:২৬ অপরাহ্ন
  • জাতীয়
  • »
  • ‘রিকশা উচ্ছেদ নয়, যানজট নিরসনে প্রাইভেটকার নিয়ন্ত্রণ করুন’ 

‘রিকশা উচ্ছেদ নয়, যানজট নিরসনে প্রাইভেটকার নিয়ন্ত্রণ করুন’ 

shershanews24.com

প্রকাশ : ১০ জুলাই, ২০১৯ ০৮:৩৪ অপরাহ্ন

শীর্ষকাগজ, ঢাকা: ঢাকার তিনটি প্রধান সড়কে রিকশা চলাচল বন্ধের প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে রিকশা-ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়ন। আজ (১০ জুলাই) সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এ বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। 
সমাবেশ থেকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের রিকশা উচ্ছেদের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয়। ইতোমধ্যে দুইদিন রিকশা চালকদের সড়ক অবরোধ কর্মসূচি পালিত হয়। রোববার থেকে বন্ধ ঘোষিত সড়কসমূহে রিকশা চলতে দেয়া না হলেও আজ ওই সব সড়ক পাড় হয়ে এক এলাকার রিকশা অন্য এলাকায় যাওয়ার সুযোগ দেয়া হয়েছে। সমাবেশে বক্তারা অবিলম্বে এই সড়কসমূহে রিকশা বন্ধের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করার পাশাপাশি প্রধান সড়কসমূহে রিকশার লেন চালু করার দাবি জানান। 

রিকশা-ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি শাহাদাৎ খাঁ-এর সভাপতিত্বে এবং কেন্দ্রীয় নেতা জাহাঙ্গীর আলমের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের উপদেষ্টা হযরত আলী, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কুদ্দুস, শওকত হোসেন, মো. হানিফ, মান্নান মিয়া, কফিল উদ্দিন শান্ত প্রমুখ। 

সমাবেশে বক্তারা বলেন, ‘রিকশা’ কয়েক লাখ শ্রমজীবী মানুষ এবং তাদের পরিবারের রুটি-রুজির মাধ্যম। অন্যদিকে সাধারণ মধ্যবিত্ত, অসুস্থ রোগী, প্রতিবন্ধী, স্কুলগামী শিশুসহ গণমানুষের বাহন এটি। যারা ঢাকাকে রিকশামুক্ত করার পরিকল্পনা নিয়েছেন তারা এটা ভাবেন না যে, সাধারণ মানুষের বিকল্প গণপরিবহন কি হবে। যারা উচ্চপদে বসে এ সমস্ত বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেন লক্ষাধিক শ্রমজীবী রিকশা-ভ্যান চালকের জীবন-জীবিকা নিয়েও তাদের ভাবার প্রয়োজন হয় না। নেতৃবৃন্দ বলেন, যাদের নগরীর জনসাধারণের সুবিধা-অসুবিধা দেখার কথা তারা বাস্তবে প্রাইভেটকার মালিকদের সেবকে পরিণত হয়েছে। ফলে রিকশা বন্ধের মতো গণবিরোধী সিদ্ধান্ত নিতে তারা দ্বিধা করেন না। 
সমাবেশে বক্তারা আরো বলেন, রিকশা-ভ্যান চালকরা গ্রামে কাজ না পেয়ে পেটের তাগিদে শহরে আসে। তাদের গ্রামে গিয়ে ধান কাটতে বলে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র যে নির্লজ্জ রসিকতা করেছেন সেটা বর্বরতার পর্যায়ে পড়ে। 

সমাবেশে বক্তারা আরো বলেন, ঢাকা শহরে যানজট দূর করার ব্যাপারে কর্তৃপক্ষ আন্তরিক হলে তারা প্রাইভেটকার নিয়ন্ত্রণের নীতি গ্রহণ করতেন। কিন্তু সেটা না করে নগরের দুর্বল জনগোষ্ঠী রিকশা চালক ও যাত্রীদের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে সরকার প্রমাণ করেছে তারা ‘শক্তের ভক্ত নরমের জম’। সমাবেশ থেকে অবিলম্বে রিকশা বন্ধের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার না করা হলে আবারও কঠোর কর্মসূচিতে যাওয়ার ঘোষণা দেন নেতৃবৃন্দ। 
শীর্ষকাগজ/বিজ্ঞপ্তি/এ