সোমবার, ১৭-জুন ২০১৯, ১০:৩২ পূর্বাহ্ন
  • খেলা
  • »
  • বল টেম্পারিংয়ের অভিযোগে যা জানালেন ফিঞ্চ

বল টেম্পারিংয়ের অভিযোগে যা জানালেন ফিঞ্চ

Sheershakagoj24.com

প্রকাশ : ১০ জুন, ২০১৯ ০২:৩৬ অপরাহ্ন

শীর্ষকাগজ ডেস্ক: বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে বল টেম্পারিংয়ের অভিযোগ উঠেছে অস্ট্রেলিয়ার লেগ স্পিনার অ্যাডাম জাম্পারের বিরুদ্ধে। এ বিষয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে ছড়িয়ে পড়েছে জাম্পারের একটি ভিডিও। আসলেই কি তিনি বল টেম্পারিং করছিলেন কিনা তা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে বিভিন্ন মহলে।

ভিডিওতে দেখা গেছে, বল করার আগে বারবার ট্রাউজারের পকেটে হাত ঢুকিয়ে কি যেন খুঁজছেন এই অস্ট্রেলীয় লেগ স্পিনার। সে হাত আবার মুখে নিয়ে ফুও দিচ্ছেন। এর পর বলে সেই হাত ঘষতে দেখা যায় তাকে। ফেসবুক, টুইটারে ভিডিও ছাড়াও পোস্ট হয়েছে একাধিক ছবি। যেখানে দেখা গেছে, হাতে কিছু একটা সাবধানে লুকিয়ে রেখেছেন জাম্পা।

জাম্পার এই ভিডিওটি রোববার কেনিংটন ওভালে ভারতের বিপক্ষের ম্যাচের। এদিন প্রথমে ব্যাট করে শিখর ধাওয়ানের সেঞ্চুরির ওপর ভর করে ৫ উইকেটে ৩৫২ রানের বড় সংগ্রহ তোলে ভারত। কোহলিদের ব্যাটের কাছে নাস্তানাবুদ হয়েছেন স্টার্ক, জাম্পারা। এদিন ৬ ওভারেই ৫০ রান দেন অ্যাডাম জাম্পা এবং ছিলেন উইকেটশূন্য।

নিজের কোনো একটি ওভারেই পকেটে বারবার হাত ঢুকিয়ে কিছু একটা করছিলেন জাম্পা। যে কারণে বল টেম্পারিংয়ের সন্দেহের তীর উঠেছে তার দিকে। তবে ম্যাচ শেষে জাম্পার ওই বিতর্কিত কাণ্ডের বিষয়ে জিজ্ঞাসা করা হলে অজি অধিনায়ক ফিঞ্চ সাফ জানিয়ে দেন, কোনো টেম্পারিং করেননি জাম্পা। তার দৃঢ় বিশ্বাস ক্যামেরায় ধরা পড়া ওই বস্তুটি ‘হ্যান্ড ওয়ারমার্স’ ছিল। হাতকে গরম রাখতে খেলায় এটি ব্যবহার করেন স্পিনাররা।

বিগ ব্যাশে জাম্পাকে এমন উপকরণ ব্যবহার করতে দেখেছেন জানিয়ে তিনি বলেন, আমি সেই ছবিটি দেখিনি এখনও। তবে তার পকেটে হ্যান্ড ওয়ারমার্সই ছিল। আর বিষয়টি আমার জানাও ছিল। প্রতিটি ম্যাচেই জাম্পা এটি ব্যবহার করেন।’

উল্লেখ্য, শীতপ্রধান দেশের ক্রিকেটে হ্যান্ড ওয়ারমার্স প্রয়োজনীয় একটি অনুষঙ্গ। শীতে বারবার হাত জমে যায়, ফলে স্পিনারদের বল করতে সমস্যায় ভুগতে হয়। তাই এ বস্তুটি পকেটে নিয়ে মাঠে নামেন কেউ কেউ। ইংল্যান্ডে স্পিনারদের নাকি এমন হ্যান্ড ওয়ারমার্স প্রায়শই ব্যবহার করতে দেখা যায়।

বিভিন্ন মহলে জাম্পার বিপক্ষে বল টেম্পারিংয়ের অভিযোগ উঠলেও আইসিসি অবশ্য এখন পর্যন্ত জাম্পাকে নিয়ে কোনো তদন্ত করেনি। সবচেয়ে বড় কথা খেলার সময় অনফিল্ড আম্পায়াররাও এ বিষয়ে কোনো প্রশ্ন তোলেননি। তা ছাড়া ম্যাচ শেষে অজি অধিনায়কের বক্তব্যে জাম্পার বল টেম্পারিং বিতর্ক থামবে বলেই বিশ্বাস অস্ট্রেলিয়া সমর্থকদের।

বল টেম্পারিং বিতর্ক যেন অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট অঙ্গনে ওতপ্রোতভাবে সঙ্গী হয়ে দাঁড়িয়েছে। কদিন আগে টেম্পারিংএ বিধ্বস্ত হয়েছিল অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট শিবির। দলের সেরা তিন ক্রিকেটার স্টিভ স্মিথ, ডেভিড ওয়ার্নার এবং ক্যামেরুন ব্যানক্রফটকে গুনতে হয়েছিল চড়া মাসুল। শাস্তি ভোগ করে বিশ্বকাপে তারা ফিরলেও আবারও বল টেম্পারিংকাণ্ডে অভিযুক্ত হলো সেই অস্ট্রেলিয়া।

শীর্ষকাগজ/আর