shershanews24.com
‘তেলবাজ’ ক্রিকেটারদের দলে রাখছেন বিরাট, রোহিতের সঙ্গে দ্বন্দ্ব
শনিবার, ১৩ জুলাই ২০১৯ ০৮:৪৬ পূর্বাহ্ন
shershanews24.com

shershanews24.com

শীর্ষকাগজ ডেস্ক: একটা সময় রাজনীতির আখড়া হয়ে উঠেছিল ভারতীয় ক্রিকেট দল। রাজনীতির নাগপাশ থেকে ঘুরে দাঁড়িয়েছিল সৌরভের টিম ইন্ডিয়া। সেই ভূতই আবার নাকি ফিরে এসেছে দলে। বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে পরাজয়ের পর এমন তথ্যই ফাঁস হয়ে গেল হাটেবাজারে। 
রিপোর্ট বলছে, দলে তীব্র হয়েছে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব। একটা গোষ্ঠী শাসক শিবির অর্থাৎ বিরাটের, আর একটি বিরোধী শিবির রোহিতের। 
বিশ্বকাপের দল নির্বাচন নিয়ে ইতিমধ্যেই উঠে গেছে প্রশ্ন। ইংল্যান্ডে থাকা সত্ত্বেও শিখর ধাওয়ান পরিবর্তে কেন অজিঙ্ক রাহানেকে চাওয়া হলো না? বা চার নম্বরে কোন যুক্তিতে অম্বাতি রায়ডুর জায়গায় সুযোগ পান বিজয় শঙ্কর বা ঋষভ পন্থ? সেমিফাইনালে ১৮ রানে ভারতের হারের পর বিস্ফোরক তথ্য চলে এসেছে প্রকাশ্যে। 
দলের ভিতরের খবর, অধিনায়ক ও সহ-অধিনায়কের মধ্যে বনিবনা নেই। গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে দীর্ণ টিম ইন্ডিয়া। রোহিতের গোষ্ঠীর লোকেরা মনে করছেন, কোচ ও অধিনায়ক মর্জিমতো সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন। যেমন, অম্বাতি রায়ডুর জায়গায় বাছা হয়েছিল বিজয় শঙ্করকে। 
শোনা যাচ্ছে, কোহলির কাছের লোকেদেরই বেশি সুযোগ দেয়া হয়। ব্যর্থ হলেও তারা বাদ পড়ছেন না। মোদ্দা কথা হলো, অধিনায়ককে তেল দিয়ে চলতে হবে। বিরোধী হলেও রোহিত শর্মা ও জশপ্রীত বুমরার পারফরম্যান্স ভালো থাকায় টিকে রয়েছেন তারা। স্বাভাবিকভাবেই অধিনায়ক ও কোচের বিরাগভাজনরা চলে যাচ্ছেন রোহিতের শিবিরে। 
সূত্রের খবর, কোচ রবি শাস্ত্রী ও বোলিং কোচ ভরত অরুণকে নিয়ে না-খুশ অধিকাংশ ক্রিকেটার। ২০১৭ সালে অনিল কুম্বলে যাওয়ার পর কোচ হয়েছিলেন শাস্ত্রী। দলে এমনটা একটা পরিস্থিতি তৈরি করে রেখেছেন কোচ ও অধিনায়ক, যে তাদের বিরুদ্ধে কেউ টু শব্দ করতে পারছেন না। সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করলেই স্থান হারাবার ভয় পাচ্ছেন ক্রিকেটাররা। 
সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত প্রশাসক কমিটির প্রধান বিনোদ রাইয়ের সমর্থনও পাচ্ছেন বিরাট কোহলি। এতে সাপের পাঁচ পা দেখেছেন বিরাট। তার সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত দলে। ক্রিকেটারদের একাংশ মনে করছে, কোচ ও অধিনায়কের প্রিয়পাত্র হলেই ঠাঁই মিলবে। সেটাই না-পছন্দ সহ-অধিনায়ক রোহিত শর্মার। আর সেমিফাইনালে রোহিতের কান্নার দৃশ্যটা কেই বা ভুলতে পারে। সূত্র: জি-নিউজ 
শীর্ষকাগজ/জে