শুক্রবার, ১৯-জুলাই ২০১৯, ০৬:৪৬ অপরাহ্ন

ভয়াবহ আগুনে ধসে পড়ল নটর ডেম ক্যাথেড্রালের চূড়া

shershanews24.com

প্রকাশ : ১৬ এপ্রিল, ২০১৯ ০৮:৩৬ পূর্বাহ্ন

শীর্ষকাগজ ডেস্ক: ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসের বিশ্বখ্যাত নটর ডেম ক্যাথেড্রালে আগুন লেগে এর সুউচ্চ চূড়াসহ ছাদ ধসে পড়েছে। আগুন লাগার ঘটনা জানার পর ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাখোঁ বলেছেন, ‘এই ঘটনায় আমি দুঃখ ভারাক্রান্ত — আমাদের সবার যেন একটা অংশ জ্বলছে।’
প্যারিসের ইল ড্য লা সিটিতে অবস্থিত ১২ শ শতাব্দীর তৈরি নটর ডেম ক্যাথেড্রালে প্যারিস শহরের অন্যতম দর্শনীয় স্থান বলে বিবেচিত। স্থানীয় সময় সোমবার বিকেল সাতটার দিকে ক্যাথেড্রালে আগুন লাগার ঘটনা ঘটে। বেশির ভাগ আগুনই ছড়িয়ে পড়ে ক্যাথেড্রালটির ছাদ ও সুউচ্চ চূড়ার দিকে। আগুনের লেলিহান শিখা ও ধোঁয়া বহু দূরে থেকে দৃষ্টিগোচর হয়। আগুন লাগার ঘটনার পর পর হাজার হাজার প্যারিসবাসী ও পর্যটকেরা নটর ডেম ক্যাথেড্রালের চারদিকে ভিড় জমায়।
১২ শতকে এই ক্যাথেড্রালের কাজ শুরু হলেও প্রায় ২০০ বছর পর এর কাজ সমাপ্ত হয়। ক্যাথেড্রালের খিলান ও বাইরের অংশ গোথিক শিল্প শৈলীতে তৈরি। নটর ডেম ক্যাথেড্রালে দৈর্ঘ্য ১২৭ মিটার ও প্রস্থ ৪০ মিটার, ছাদের উচ্চতা ৩৩ মিটার। ক্যাথেড্রালটিতে দুটি সুউচ্চ চূড়া রয়েছে যা আগুনে ভেঙে পড়েছে।
এমানুয়েল মাখোঁ আজ সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশ্যে টেলিভিশনে ভাষণ দেওয়ার কথা থাকলেও তিনি তা বাতিল করে দিয়ে বলেছেন, ‘আজ রাতে ক্যাথলিক সম্প্রদায়ের মানুষেরাসহ ফ্রান্সের সব নাগরিকেরা দুঃখ ভারাক্রান্ত। এই আগুন যেন আমাদের একটি অংশে জ্বলছে।’ তিনি সন্ধ্যায় জ্বলন্ত নটর ডেম ক্যাথেড্রাল পরিদর্শন করেন।
নটর ডেমে ক্যাথেড্রালের একজন মুখপাত্র আন্দ্রে ফিনেট জানিয়েছেন, ক্যাথেড্রালের ওপরের অংশের যার কিছুটা ১৩ শ এবং আরেকটি অংশ উনিশ শতকে তৈরি তা সম্পূর্ণরূপে ভস্মীভূত হয়েছে। তবে শেষ পর্যন্ত বিশাল ক্যাথেড্রালের খিলানগুলি রক্ষা পাবে কিনা তা নিশ্চিত নয়।
প্যারিসের ফায়ার সার্ভিসের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, আগুনের সূত্রপাত ঘটেছে ক্যাথেড্রালের ওপরের অংশে। বেশ কিছু দিন ধরে ক্যাথেড্রালের ওপরের অংশে সংস্কার কাজ চলছিল। ধারণা করা হচ্ছে, সংস্কার কাজে কোনো ক্রটির ফলে এই আগুনের সূত্রপাত।

প্যারিসের মেয়র অ্যানে হিডালগো বলেছেন, ‘ভয়াবহ আগুন আমাদের প্যারিসের ঐতিহ্যবাহী স্মারক ধ্বংস করে দিল।’ এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত (স্থানীয় সময় রাত সাড়ে ১১টা) আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ৪০০ কর্মী কাজ করছেন। তবে এখনো তা নিয়ন্ত্রণে আসেনি।
শীর্ষকাগজ/জে