বুধবার, ১৯-সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১:৫৪ পূর্বাহ্ন

মুখ্যমন্ত্রী নাইডুর বিরুদ্ধে পরোয়ানা জারি

Shershanews24.com

প্রকাশ : ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০৩:২১ অপরাহ্ন

শীর্ষনিউজ ডেস্ক: ৮ বছরের পুরোনো একটি মামলায় ভারতের অন্ধ্র প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডুর বিরুদ্ধে জামিন-অযোগ্য গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছে মহারাষ্ট্রের আদালত। একই মামলায় আরও ১৪ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। তাদের সবাইকে গ্রেফতার করে ২১ সেপ্টেম্বর পরবর্তী শুনানির দিন আদালতে হাজির করার জন্য পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছে আদালতের বিচারক। সে অনুযায়ী, যেকোনো সময়ই গ্রেফতার হতে পারেন নাইডু। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদন থেকে এসব কথা জানা গেছে।

চন্দ্রবাবু নাইডু
২০১০ সালে গোদাবরী নদীর বাবলি বাঁধ প্রকল্পের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে উসকানি দেওয়ার অভিযোগে চন্দ্রবাবু নাইডুর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছিল। মহারাষ্ট্রের নানদেদ জেলার ধর্মাবাদ আদালতে মামলাটি দায়ের করা হয়৷ আট বছর আগের পুরোনো সে মামলায় ধর্মাবাদ আদালতের জুডিশিয়্যাল ম্যাজিস্ট্রেট বৃহস্পতিবার চন্দ্রবাবু নাইডু, অন্ধ্র প্রদেশের সেচ মন্ত্রী উমামেশ্বর রাও, সমাজকল্যাণমন্ত্রী জি. কমলাকার ও আরও ১২ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন।

২০১০ সালে বিরোধীদের আসনে শীর্ষস্থানে ছিল টিডিপি৷ স্থানীয় প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বাবলি বাঁধ প্রকল্প এলাকায় গিয়েছিলেন নাইডু এবং টিডিপি সদস্যরা৷ ২০১০ সালে গোদাবরী নদীর ওপরে বাবলি বাঁধ প্রকল্পের বিরুদ্ধে আন্দোলনে নেমেছিলেন তারা৷ নাইডুদের অভিযোগ ছিল, এ প্রকল্পের মাধ্যমে গোদাবরী নদীর পানিপ্রবাহ তৎকালীন অবিভক্ত অন্ধ্র প্রদেশের তেলেঙ্গানা অঞ্চল থেকে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে। আন্দোলনের কারণে গ্রেফতার করা হয় তাদের৷ তবে গ্রেফতার হওয়া স্বত্ত্বেও সেসময় জামিনের আবেদন জানাননি নাইডু-সহ অন্যান্য টিডিপি সদস্যরা৷ পুনের সেন্ট্রাল জেলে একমাস বন্দি ছিলেন তারা৷ পরে ছাড়া পান।

কেন আগের গ্রেফতারি পরোয়ানাগুলো কার্যকর করা হয়নি তা জানতে চেয়ে সম্প্রতি আদালতে একজনের করা এক আবেদনের প্রেক্ষিতে নতুন করে নাইডুর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হলো।

শীর্ষনিউজ/এইচএস