মঙ্গলবার, ১৮-জুন ২০১৯, ১০:৫৩ অপরাহ্ন
  • শিক্ষা
  • »
  • শিক্ষার্থীর পা ভাঙলো রেলওয়ে নিরাপত্তাকর্মী, বিচার দাবিতে চবিতে মানববন্ধন 

শিক্ষার্থীর পা ভাঙলো রেলওয়ে নিরাপত্তাকর্মী, বিচার দাবিতে চবিতে মানববন্ধন 

Sheershakagoj24.com

প্রকাশ : ১৮ মে, ২০১৯ ০৭:৪১ অপরাহ্ন

শীর্ষকাগজ, চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) রসায়ন বিভাগের এক ছাত্রের পা ভেঙে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে রেলওয়ের এক নিরাপত্তাকর্মীর বিরুদ্ধে। এই ঘটনার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে ছাত্রলীগ, একই সঙ্গে স্মারকলিপিও দিয়েছে। শুক্রবার (১৭ মে) বিকেলে নগরীর বটতলী স্টেশনে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী রাইয়্যান আলম রসায়ন বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র। আর অভিযুক্ত নিরাপত্তাকর্মী মশিউর রহমান মুসা রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর (আরএনবি) একজন সিপাহী। এ ঘটনায় ভেঙে যাওয়া পা জোড়া লাগাতে শনিবার (১৮ মে) রাতে অস্ত্রোপচার হবে বলে জানিয়েছে রাইয়্যান।

রাইয়্যান আলম বলেন, ‘ক্যাম্পাসে যেতে শুক্রবার বিকেলে বটতলী রেলস্টেশনে যাই। গিয়ে দেখি ট্রেন ক্যাম্পাসে যাচ্ছে না। ট্রেনে যখন ইঞ্জিন লাগানো নেই। বিশ্ববিদ্যালয়ের দুইজন ছোট ভাই মিলে যে ট্রেনে ইঞ্জিন লাগানোর কথা ওই ট্রেনের একটি বগিতে গিয়ে বসেছি। এসময় আরএনবির তিনজন সদস্য আসেন। একজনের নাম মশিউর। আমাদের দুজনের কথার প্রসঙ্গে মশিউর বলেন , এই তোরা কারা? তুই করে বলার পর বললাম, আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। ক্যাম্পাসে যাবো। তিনি বলেন, এখানে কেন তোরা? আমি বললাম, আমি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র, শাটলে বসতেই পারি। কথা কাটাকাটির মধ্যে তিনি বললেন, তুই টাকা দে। আমি বললাম, আমি ৩ বছর ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ছি। আমি ট্রেনের জন্য কাউকে টাকা দেব না। দিলে ক্যাম্পাসকে দেব।’

রাইয়্যান আরও বলেন, ‘তখন আমি বন্ধুদের মোবাইলে কল দিচ্ছি। যেহেতু সমস্যা করতেছে। আরএনবির ওই সদস্য হঠাৎ করে আমার মোবাইল কেড়ে নিতে চেষ্টা করে। তবে আমি দিচ্ছিলাম না। তখন তিনি বললেন, এই কাকে কল দিচ্ছিস দেখি। একপর্যায়ে মোবাইল কেড়ে নিতে না পেরে তিনি দুটি লাঠি দিয়ে আমাকে খুব মারধর করে। আমার পা ভেঙে গেছে। পরে পাঁচলাইশের পিপলস হাসপাতালে গিয়ে এক্স-রে করে দেখলাম। আমার বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই ছোট ভাইও আমাকে বাঁচাতে গিয়ে আহত হয়েছে।’

এ ঘটনায় রেলওয়ে নিরাপত্তা ফাঁড়িতে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে ভুক্তভোগী রাইয়্যানের সহপাঠীরা। এদিকে শনিবার দুপুরে বটতলী স্টেশনে একটি মানববন্ধন করেছে ছাত্রলীগ।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, একজন ছাত্রকে কোন কারণ ছাড়া মারধর করা একটি নৃশংস ঘটনা। আমরা এই ঘটনার নিন্দা জানাই। দোষী মশিউর রহমানকে চাকরিচ্যুত করার সুপারিশ করতে হবে। আর না হলে আমরা কঠোর কর্মসূচি পালন করবো।

যোগাযোগ করা হলে রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর চট্টগ্রাম স্টেশনের পরিদর্শক আমান উল্লাহ আমান বলেন, ‘শিক্ষার্থীরা যেভাবে চেয়েছে, ঠিক সেভাবে কাজ করেছি। তাদের দুটি দাবি ছিল।
দাবির মধ্যে আছে, সুষ্ঠু বিচার ও ক্ষতিপূরণ দেওয়া। সবই মেনে নেওয়া হয়েছে। অভিযুক্ত মশিউর রহমান মূসাকে ক্লোজড করা হয়েছে। সকল কাগজপত্র প্রস্তুত করা হয়েছে। রোববার তাকে বরখাস্ত করা হবে।’
শীর্ষকাগজ/এসএসআই