মঙ্গলবার, ১৮-জুন ২০১৯, ০১:৩২ অপরাহ্ন
  • শিক্ষা
  • »
  • দুর্নীতির অভিযোগে বেরোবি ভিসিকে স্মারকলিপি প্রদান

দুর্নীতির অভিযোগে বেরোবি ভিসিকে স্মারকলিপি প্রদান

Sheershakagoj24.com

প্রকাশ : ১৬ এপ্রিল, ২০১৯ ০৮:৪৬ অপরাহ্ন

শীর্ষকাগজ, রংপুর: বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) ভিসি প্রফেসর ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহকে ১৮ দফা দাবি সম্বলিত স্মারকলিপি দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি।
মঙ্গলবার দুপুরে শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. মো. গাজী মাজহারুল আনোয়ার, সাধারণ সম্পাদক খাইরুল কবির সুমনসহ সমিতির নেতারা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অনুপস্থিতিতে ভিসির বিশেষ সহকারী (পিএস) আমিনুর রহমানের কাছে স্মারকলিপি জমা দেন।
রাষ্ট্রপতি কর্তৃক প্রদত্ত নিয়োগের শর্ত অনুযায়ী ভিসিকে সার্বক্ষণিক বিশ্ববিদ্যালয়ে অবস্থান, দ্রুত প্রো-ভিসি ও ট্রেজারার নিয়োগ, ক্যাম্পাসে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং নারী জাগরণের অগ্রদূত রোকেয়া সাখাওয়াত হোসেনের প্রতিকৃতি স্থাপনসহ ১৮ দফা দাবিতে এই স্মারকলিপি দেয়া হয়।
১৮ দফা দাবির অন্যান্য দাবিগুলো হলো- বিশ্ববিদ্যালয়ের সব সিন্ডিকেট সভা, নিয়োগ বোর্ড, অর্থ কমিটির সভাসহ সব সভা বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্যাম্পাসে করা, বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন প্রকল্পের দ্বিতীয় ফেজের কার্যক্রমের ব্যবস্থা গ্রহণ, নতুন যোগদানকৃত শিক্ষকদের অনিয়মতান্ত্রিক ফাউন্ডেশন ট্রেনিং বন্ধ করে বিভাগের শিক্ষক স্বল্পতার সংকট সমাধানসহ শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীর সব শিক্ষা ও পেশাগত ট্রেনিং, বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. ওয়াজেদ রিসার্চ অ্যান্ড ট্রেনিং ইন্সটিটিউটের অধীনে নিজস্ব ক্যাম্পাসে যথাযথ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা, শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে লিখিত পরীক্ষা নিয়োগ বোর্ডের সব সদস্যদের অংশগ্রহণের মাধ্যমে গ্রহণযোগ্য পদ্ধতিতে সম্পন্ন করা ইত্যাদি।
স্মারকলিপির বিষয়ে শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. গাজী মাজহারুল আনোয়ার ও সাধারণ সম্পাদক খায়রুল কবির সুমন বলেন, ভিসির দায়িত্বকালের প্রায় অর্ধেক সময় অতিক্রান্ত হতে চললেও বিশ্ববিদ্যালয়ে হতাশা ও নৈরাজ্য কমেনি বরং বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ে এক অস্থিরতা পরিবেশ বিরাজ করছে যার অন্যতম প্রধান কারণ ভিসির বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুপস্থিতি। যার ফলে দেশব্যাপী বিশ্ববিদ্যালয় তথা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সম্পর্কে নানাভাবে ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে।
শিক্ষক নেতারা বলেন, গত ৫ মার্চ শিক্ষক সমিতির সাধারণ সভার ৬৩ জন শিক্ষকের সিদ্ধান্ত মোতাবেক শিক্ষক সমিতির সদস্যরা শিক্ষকদের অধিকার, স্বাধীনতা, বিশ্ববিদ্যালয়ের মর্যাদা ও পবিত্রতা সংরক্ষণের লক্ষ্যে আমরা এই স্মারকলিপি দিয়েছি।

শীর্ষকাগজ/আর