রবিবার, ২৫-আগস্ট ২০১৯, ০১:২৯ অপরাহ্ন
  • জেলা সংবাদ
  • »
  • কাপাসিয়ায় ভুল চিকিৎসায় প্রসূতির মৃত্যু, হাসপাতাল সিলগালা

কাপাসিয়ায় ভুল চিকিৎসায় প্রসূতির মৃত্যু, হাসপাতাল সিলগালা

shershanews24.com

প্রকাশ : ২৬ এপ্রিল, ২০১৯ ১১:৪২ পূর্বাহ্ন

শীর্ষকাগজ, গাজীপুর : গাজীপুরের কাপাসিয়ায় ভুল চিকিৎসা ও অবহেলায় তানিয়া আক্তার নামে এক প্রসূতির মৃত্যুর ঘটনায় বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় আইমরাইদ জেনারেল হাসপাতাল সিলগালা করে দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। ঘটনার পর থেকে হাসপাতালের লোকজন পলাতক রয়েছেন।

ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। মৃত তানিয়া আক্তার গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার কুশদী গ্রামের রায়হানের স্ত্রী।
নিহতের স্বজন ও এলাকাবাসী জানান, গত ২২ এপ্রিল সন্তান প্রসবের জন্য তানিয়া আক্তারকে আইমরাইদ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বুধবার দুপুরে তার সিজারিয়ান অপারেশন করা হয়। এসময় তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন। গুরুতর অবস্থায় তাকে অ্যাম্বুলেন্সযোগে ঢাকায় নেওয়ার পথে মারা যান তানিয়া। তবে নবজাতক ছেলেটি সুস্থ রয়েছে। ঘটনার পর নিহতের স্বজনরা ভুল চিকিৎসায় ওই গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ করেন।

নিহতের চাচি রুমা আক্তারের বলেন, ‘সিজারের পর থেকে তানিয়ার প্রসাবের জায়গায় সমস্যা দেখা দেয়। হাসপাতালের অবহেলায় ও ভুল চিকিৎসায় তানিয়া আক্তারের মৃত্যু হয়েছে। আমরা এর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।’

বিষয়টি জানার পর স্থানীয় প্রভাবশালী মহলের সহযোগিতায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করে। এ নিয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বক্তব্য জানতে বৃহস্পতিবার দুপুরে হাসপাতালে গেলে সেখানে কাউকে পাওয়া যায়নি।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কাপাসিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইসমত আরা হাসপাতালে গিয়ে তা সিলগালা করে দেন এবং রোগীদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে স্থানান্তর করেন। এ ঘটনা তদন্তে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কনসালটেন্ট আয়েশা সিদ্দিকাকে প্রধান করে তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। 

এ ব্যাপারে গাজীপুর জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ুন কবীর বলেন, ভুল চিকিত্সা অথবা কারও গাফিলতির কারণে প্রসূতির মৃত্যু হলে তদন্ত সাপেক্ষে সে ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, প্রতিটি মায়ের জীবন আমাদের কাছে অমূল্য। আর যাতে কোনো মায়ের মৃত্যু না হয়, সেই জন্য আমরা ঘটনাটি তদন্ত করে দেখব।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইসমত আরা বলেন, ‘আমরাইদ জেনারেল হাসপাতালটি সিলগালা করা হয়েছে। ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির প্রতিবেদন অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে’
শীর্ষকাগজ/এএম