বুধবার, ১৯-সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০:৪১ পূর্বাহ্ন
  • জেলা সংবাদ
  • »
  • শরীয়তপুরে পদ্মার ভাঙনে বিলীন ৭ হাজার পরিবার

শরীয়তপুরে পদ্মার ভাঙনে বিলীন ৭ হাজার পরিবার

Shershanews24.com

প্রকাশ : ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০৫:৫৯ অপরাহ্ন

শীর্ষনিউজ, শরীয়তপুর : শরীয়তপুরে পদ্মার ভাঙনে বিলীন হয়ে যাচ্ছে ভিটেমাটি, বাড়িঘরসহ নানা স্থাপনা। ঘটছে প্রাণহানিও। পদ্মার ভাঙনে গত ৩ মাসে নড়িয়া ও জাজিরা উপজেলায় গৃহহীন হয়েছে ৭ হাজার পরিবার।

তিলে তিলে গড়ে তোলা বসতঘর কিংবা বাণিজ্যিক স্থাপনা চোখের সামনে বিলীন হওয়ার এ চিত্র এখন নিত্যদিনের। রাত-দিন বসতভিটা, রাস্তাঘাট গ্রাস করছে পদ্মা নদী। দীর্ঘদিন ধরে, পদ্মার ভাঙা-গড়ার সাথে যুদ্ধ করছেন শরীয়তপুরের নড়িয়া ও জাজিরা উপজেলার নদী তীরবর্তী এলাকার বাসিন্দারা। প্রতিবছরই পদ্মায় বিলীন হচ্ছে শত শত জনবসতি, ফসলি জমি, হাট-বাজার, লঞ্চঘাট, পাকা সড়ক ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সহ বিভিন্ন স্থাপনা। এ কারণে পাল্টে যাচ্ছে নড়িয়া উপজেলার মানচিত্র।

ভাঙন ঠেকাতে, গতবছর প্রায় এক হাজার ৯৭ কোটি টাকা ব্যয়ের আট দশমিক ৯ কিলোমিটার রক্ষাবাঁধ নির্মাণ ও নদী খননে প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। চলতি বছরের দোসরা জানুয়ারি একনেকে পাস হয়, পদ্মা নদীর ডান তীররক্ষা প্রকল্প। ভাঙনের তীব্রতা কমাতে জিও ব্যাগ ফেলা হলেও এখন পর্যন্ত প্রকল্পের কাজ শুরু করেনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

স্থানীয় বাসিন্দা ও জনপ্রতিনিধিদের অভিযোগ, প্রকল্প বাস্তবায়ন না হওয়ায় গত কয়েক মাসে তীব্র আকার ধারণ করেছে নদীভাঙন। বিলীন হয়ে গেছে কয়েক হাজার পরিবারের বসতভিটা ও ফসলি জমি। বাণিজ্যিক ভবন, পাকা সড়ক ও সরকারি-বেসরকারি স্থাপনার পাশাপাশি পদ্মার কড়াল গ্রাসে বাদ পড়েনি নড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সও।

জেলা ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কার্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, গতবছরও নড়িয়া ও জাজিরায় পদ্মা নদী ভাঙনে গৃহহীন হয় ৩ হাজার ৮৯০ পরিবার।

শীর্ষনিউজ/এমই