মঙ্গলবার, ১৮-জুন ২০১৯, ০৯:৩৪ অপরাহ্ন
  • প্রশাসন
  • »
  • নৌবাহিনীর সমুদ্র মহড়া শুরু ১৭ ফেব্রুয়ারি

নৌবাহিনীর সমুদ্র মহড়া শুরু ১৭ ফেব্রুয়ারি

Sheershakagoj24.com

প্রকাশ : ০৯ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯ ০৭:২৩ অপরাহ্ন

শীর্ষকাগজ, ঢাকা: যুদ্ধকালীন, যুদ্ধপূর্ববর্তী ও শান্তিকালীন যে কোনো হুমকি মোকাবেলাসহ দেশের সমুদ্র এলাকার নিরাপত্তা ও সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা নিশ্চিতে বাৎসরিক সমুদ্র মহড়ার আয়োজন করেছে বাংলাদেশ নৌবাহিনী। ‘এক্সারসাইজ সেফ গার্ড- ২০১৮’নামের এ মহড়া তিনটি পর্বে আগামী ১৭ ফেব্রুয়ারি থেকে ৫ মার্চ পর্যন্ত সময়ে অনুষ্ঠিত হবে।
নৌবাহিনীর সদর দফতরের অপারেশন্স শাখা থেকে এ সংক্রান্ত একটি চিঠি অর্থ মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ জানানো হয়েছে। শনিবার অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছ।
চিঠিতে বলা হয়, দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও ক্রমবর্ধমান প্রবৃদ্ধিতে সমুদ্র এলাকার গুরুত্ব অপরিসীম। দেশের আমদানি-রফতানি পণ্যের ৯৫ ভাগই সমুদ্রপথে বাণিজ্যিক জাহাজের মাধ্যমে বহন করা হয়। এছাড়া সমুদ্র এলাকায় তেল-গ্যাস উত্তোলন ও মৎস্য সম্পদ আহরণসহ অন্যান্য বাণিজ্যিক কর্মকাণ্ড দেশের অর্থনীতির জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।
ভারত ও মিয়ানমারের সঙ্গে সমুদ্রসীমা নির্ধারণের পর বাংলাদেশ মূল ভূখণ্ডের ন্যায় ৮৮ ভাগ আয়তনের বিশাল সমুদ্র এলাকা হতে মৎস্য ও খনিজ সম্পদ আহরণের অধিকার অর্জন করেছে। এ সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবহার নিশ্চিত করতে ‘ব্লু ইকোনমি সেল’ কর্তৃক প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণ করা হচ্ছে।
চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, দেশের সমুদ্র এলাকায় যে কোনো সম্ভাব্য যুদ্ধ পরিস্থিতি ও শান্তিকালীন সময়ে যথাযথ নিরাপত্তা বিধানের জন্য নৌবাহিনীসহ সংশ্লিষ্ট সব সমুদ্র ব্যবহারকারী সংস্থাসমূহের মধ্যে পারস্পরিক সমন্বয় ও সহযোগিতা নিশ্চিত করা বিশেষ প্রয়োজন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে সম্ভাব্য যুদ্ধকালীন, যুদ্ধপূর্ববর্তী ও শান্তিকালীন যে কোনো হুমকি মোকাবেলাসহ দেশের সমুদ্র এলাকার প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার নিরাপত্তা ও সুষ্ঠু ব্যবহার বা ব্যবস্থাপনা নিশ্চিতের জন্য এবং সমুদ্র ব্যবহারকারী সংস্থার মধ্যে পারস্পরিক সমন্বয় ও যোগসূত্র অব্যাহত রাখতে বাংলাদেশে নৌবাহিনী প্রতি বছরের মতো এবারও বাৎসরিক সমুদ্র মহড়া আয়োজনের পরিকল্পনা করেছে।
এ বছরের সমুদ্র মহড়া তিনটি পর্বে অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম পর্বে (১৭-২০ ফেব্রুয়ারি) চারদিনব্যাপী অনুষ্ঠিত হরবোর ওয়ার্কআপ (আশ্রয় কর্মশাল) এবং ২১-২৩ ফেব্রুয়ারি তিনদিনব্যাপী হবে কনসোলিডেশন (একীকরণ)। দ্বিতীয় পর্ব অর্থাৎ ২৪-২৭ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে ‘সি কন্ট্রোল অ্যান্ড অপারেশন’ এবং ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে ১ মার্চ দুদিনব্যাপী অনুষ্ঠিত হবে ‘আর অ্যান্ড আর’ প্রোগ্রাম। সর্বশেষ তৃতীয় পর্বে (২-৫মার্চ) থাকছে ‘প্রোজেকশান অব পাওয়ার অ্যাট সি’ নামক কর্মসূচি।
‘এক্সারসাইজ সেফ গার্ড- ২০১৮’ এর সমাপনী দিবসের মহড়া পর্যবেক্ষণের জন্য রাষ্ট্রপতিকে প্রধান অতিথি হিসেবে আমন্ত্রণ জানানো হবে বলেও চিঠিতে উল্লেখ করা হয়।
শীর্ষকাগজ/এনএস